Bengali Year

কন্যা রাশির ১৪৩১ বাংলা বছরটা কেমন কাটবে, কি করলে ভালো থাকবেন

১৪৩১ সালের পয়লা বৈশাখ থেকে চৈত্রসংক্রান্তি পর্যন্ত কন্যা রাশির মোটামুটি বছরটা কেমন যাবে তার সম্ভাব্য ফলাফল ও কি করলে বছরটায় ভালো থাকবেন।

এই রাশির অধিপতি গ্রহ বুধ। ভাবাবেগের রাশি। উক্ত রাশির জাতক জাতিকাদের মুখশ্রীতে প্রতিফলিত রয়েছে সৌম্যভাব। স্মৃতিশক্তির প্রখরতায় এরা অনেক বিষয়ই কণ্ঠস্থ করতে সমর্থ হয়। এদের চরিত্রের মধ্যে নির্মল নির্লোভ কমনীয়তা থাকে তাই খুব সহজেই শত্রুকে বশীভূত করতে সক্ষম হয়।

এই রাশির প্রেমাবেদন থাকে অতিমাত্রায়। বিপরীত লিঙ্গকে দ্রুত আকর্ষণ করতে পারে। বিবাহ প্রায়ই অসবর্ণ পরিচিতের মধ্যে হয়ে থাকে। সরলতার মধ্যে রয়েছে আত্মবিশ্বাস ও মানসিক সংযম।

নিজ প্রচেষ্টা এবং অন্যের সহায়তা এ দুইয়ের মিলনে আসে প্রতিষ্ঠা। স্বভাবে বুধ তমোধর্মী তাই এ রাশি বৈরাগ্যকে আশ্রয় করে এগিয়ে চলতে চায় না। ভালোবেসে বিয়ে করলেও স্বামী ও স্ত্রী প্রায়ই মনোমতো হয় না। সংগীত সাহিত্য শিল্পের প্রতি আকর্ষণ যেন সহজাত।

আমার জ্যোতিষশাস্ত্রের শিক্ষাগুরু শ্রীশুকদেব গোস্বামীর গ্রন্থের সাহায্য নিয়ে এই অংশটুকু লেখা হয়েছে। এর সঙ্গে সংযোজন করা হয়েছে নিজের পেশাগত জীবনের বেশ কিছু অভিজ্ঞতার কথা। লেখক চিরকৃতজ্ঞ হয়ে রইল উক্ত গ্রন্থের লেখক ও প্রকাশকের কাছে।

বছরটা কেমন কাটবে : কর্মজীবনে এ বছর ব্যবসায় ক্ষেত্রে অনেকটাই উন্নতি হবে অপ্রত্যাশিত যোগাযোগ বাড়বে কর্মক্ষেত্রে। নতুন কোনও যোগাযোগে উৎসাহিত হবেন। পেশায় যারা আছেন তাদের কর্মজীবনে সম্মানের সঙ্গে অর্থাগমের সুযোগ বাড়বে। চাকরিজীবীদের ছোট্ট কোনও সুযোগ খুশি করতে পারে।

এ বছর নতুন নতুন আর্থিক যোগাযোগে যথেষ্ট উৎসাহিত হবেন। আর্থিক উন্নতি তো হবেই। পুরনো আটকে থাকা টাকা খানিকটা হলেও ছাড় পাবে। গত বছরের তুলনায় অর্থাগমের মাত্রা খানিকটা বাড়বে। অতিরিক্ত ব্যয়ের পরিমাণ অনেকটাই কমবে। অপ্রত্যাশিত কিছু অর্থাগম হবে, যেটা ভাবেননি।

সারা বছর স্বাস্থ্যটা ভালোই যাবে। খুচখাচ সর্দি কাশি জ্বর ছাড়া বড় কোনও রোগ ভোগে পড়ার ভয় নেই তবে হার্টের রোগীদের পক্ষে স্বাস্থ্যের ক্ষেত্রে সময়টা অশুভ সূচক। হঠাৎ হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা প্রবল।

এ বছর নিজ কিংবা নিকট আত্মীয়ের গৃহে একাধিকবার শুভ কর্মানুষ্ঠান হবে। আপনি নিজেও উপস্থিত থাকবেন। সেই উপলক্ষে বেশ কিছু অর্থব্যয়ও হবে। একাধিকবার সুসংবাদ পাবেন। কর্মপ্রার্থীদের অনেকের কোনও বয়স্ক ব্যক্তির সহায়তা কর্মলাভ সম্ভাবনা প্রবল, সেটা একাধিকবার এবং একাধিক জায়গায়। এ বছর অপ্রত্যাশিতভাবে ছোট হোক বা বড় ভালো ঘটনা কিছু ঘটবে।


এ বছর সাদা বা ঘিয়ে রঙের উপরে কয়েকবার উপহার কিছু পাবেন। খুব দামি না হলেও  কমদামি হবে না। বেশ কয়েকবার কোথাও না কোথাও বেড়াতে যাবেন। দেবদেবী ও মঠ মন্দিরের টান বা আকর্ষণ বেশ খানিকটা বাড়বে। ইচ্ছা অনিচ্ছায় মাঝেমধ্যে সেখানে পৌঁছে যাবেন।

কোনও উচ্চপদস্থ অথবা বয়স্ক কোনও ব্যক্তির সহায়তা লাভ হবে। সেটা অর্থ কিংবা কোনও যোগাযোগ দিয়ে। এবছর বেশ কয়েকবার কোথাও না কোথাও নিমন্ত্রিত হবেন এবং জব্বর খানাদানা হবে।

এখানে যে প্রতিকারগুলি রাশি অনুযায়ী করা হল তা শুধুমাত্র এক বছরের জন্য। প্রতিকারগুলি আমার মনগড়া কোনও কথা নয়। বিভিন্ন সময়ে ভারতের নানা প্রান্তে ভ্রমণকালীন পথচলতি সাধুসঙ্গের সময় লোক-কল্যাণে সাধুদের বলা প্রতিকারগুলিই এখানে করা হল।

কি করলে একটু ভালো থাকবেন : সম্ভব হলে প্রতি শনিবার নটা সাদা ফুল (টগর বাদে) আর কলা বাদে একটা ফল যে কোনও প্রতিষ্ঠিত কালীমন্দিরে সকাল থেকে রাতের মধ্যে যখন সময় পাবেন, দক্ষিণা সমেত দিয়ে চলে আসুন। কাজটা সমানে করতে থাকুন। সংসার ও প্রতিষ্ঠা জীবনের সার্বিক কল্যাণ তো হবেই, দেহমনের অনেক স্বস্তি আসবে।

কি রঙের পোশাক পরবেন : কন্যা রাশির জাতক জাতিকাদের জন্য হালকা আকাশি, হালকা সবুজ, হালকা হলুদ আর সাদা পোশাক অত্যন্ত শুভদায়ক। বাড়িঘরের রঙের মধ্যে থেকে একটা পছন্দ করতে পারেন।

এবার ব্যক্তিগত রাশি অনুসারে ‘ফল’ কতটা মিলবে সে বিষয়টি খোলসা করে বলা যাক। এখানে যে ফলাফল লেখা হল তা একেবারেই অনুমানভিত্তিক।

নক্ষত্র ভেদে এক এক জাতক-জাতিকার মানসিক গঠন, চিন্তাভাবনা, চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য, জীবনপ্রবাহ এক একরকম হয়ে থাকে; এর সঙ্গে থাকে জন্মকালীন রাশিচক্রে শুভাশুভ গ্রহের অবস্থান। রাশি এক হলেও নক্ষত্র ইত্যাদি ভেদে ফলাফলের তারতম্যটাই স্বাভাবিক।

অত্যন্ত সূক্ষ্ম বিচার করে ফলাফল লেখা সম্ভব হয় না। প্রত্যেকটা রাশির কোনও একটা নক্ষত্রকে ধরে গড়ে একটা অনুমানভিত্তিক শুভাশুভ ফল লেখা হয়। ফলে কারও ফল মেলে দারুণভাবে, কারও কিছু কিছু, কারও বা একেবারেই নয়।

সব কথা মিলবে, এমনটা ভাববার কোনও কারণ নেই। এখানে রাশির ওপর ভিত্তি করে ভাগ্যফল নিয়ে যা লেখা তা অভিজ্ঞতায় দেখা একটা আভাস মাত্র। এটাই বাস্তব সত্য বলে ধরে নিয়ে চলাটা কোনও কাজের কথা নয়, চলার কারণ আছে বলেও মনে হয় না।

Show Full Article

3 Comments

  1. sastryji amar akhon somoy khub kharap cholchhe, chakri chole gachhe, kichhu unnoti samvob kina bolle upokrito hobo, amar janmo tarikh – 11/02/1974, 00:35 AM. M,R,Bangoor hospital.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *